প্রথমত অর্জিনাল  নামে  কোনো ম্যাপ হয় না।

১। মূল মাষ্টার ম্যাপঃ যেটা জরিপের সময় মূল ম্যাপ হিসেবে প্রস্তুত করা হয় এবং DLR অফিস বা জরিপ অধিদপ্তরে সংরক্ষণ করা থাকে। কিন্তু এই ম্যাপটি জমির মালিকের পাওয়ার কোনোরকম  সুযোগ নেই। উল্লেখ্য মাষ্টার ম্যাপে ডাবল ডাবল দাগ থাকে।    এই ম্যাপটি থেকে ৪ ধরনের ম্যাপ পাওয়া যায় ।
২। প্লেট প্রিন্টঃ মূল মাষ্টার ম্যাপ থেকে  তেজগাঁও সেটেলমেন্ট অফিস যে ম্যাপটা প্রিন্ট বা মূদ্রন করে সেটাকে প্লেট প্রিন্ট বলা হয়।   এটি জরিপ সমাপ্তির পর উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিস হতে বিতরণ  করা  হয়। কিন্তু মনে রাখা ভালো পরবর্তীতে এই ম্যাপ আর পাওয়া যায় না বললেই চলে।  উদাহরণ স্বরূপ কোনো একটি মৌজায় ১৯৯১ সালে বি এস জরিপ    সমাপ্তি হয়।  ১৯৯৫ সালে উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিস সরকার নির্ধারিত ফি নিয়ে বেশ কিছু ম্যাপ বিতরণ করে এই ম্যাপ গুলো হচ্ছে প্লেট প্রিন্ট বা মূদ্রণ ম্যাপ। 

৩। কালার স্কেন প্রিন্ট  কপিঃ  মূল ম্যাপ বা মাষ্টার ম্যাপ থেকে স্কেন করা সার্ভার থেকে প্রিন্ট করে দেয়।  জেলা ডিসি অফিস ও তেজগাঁও জরিপ অফিস এই ম্যাপ ৫২০ টাকা সরকারি ফি এর মাধ্যমে সরবরাহ করে।

এই ম্যাপের অসুবিধাঃ এই ম্যাপের দাগ গুলো একটু মোটা হয় ফলে স্কেল দিয়ে জমি মাপতে গেলে অসুবিধা হয় ।  ২.  এটি কালার কাগজে প্রিন্ট হওয়াতে ফটোকপি ভালো হয় না।  ঝাপসা ফটোকপি হয়।  কিন্তু ভালো ফটোকপি প্রায় মূল ম্যাপের কাছাকাছি হিসেবে ব্যাবহার করা যায়। ৩. পানিতে ভিজলে  নকশার দাগ গুলো মূছে যায়। 

৪।পাওয়া যায় নাঃ কিন্তু এই ম্যাপটি ও পাওয়া যায়।  প্লেট প্রিন্ট বা মূদ্রণ ম্যাপ এর পরেই এই ম্যাপ   এর অবস্থান।  এই ম্যাপটি সবচেয়ে বড় সুবিধা ১ টি ম্যাপ তুলে বেশ কয়েকটি ফটোকপি করেও কাজ করা যায়।  বর্তমানে যেহেতু প্লেট প্রিন্ট বা মূদ্রণ কপি পাওয়া যায় না। ২ য় অপশন হিসেবে এই ম্যাপ সংগ্রহ করা যেতে পারে।  যেহেতু কালার স্কেন ম্যাপে বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে। 

৪. বড় সাইজের ডিজিটাল  ফটোকপি ম্যাপঃ  একটি ম্যাপকে বড় সাইজের ভালো ডিজিটাল ফটোকপি এর খরচ ৫০-১০০ টাকা।   যদি ফটোকপি ভালো মেশিনের হয় এবং মূল ম্যাপের ফটোকপি হয় তাহলে সমস্যা নেই।  এই জাতীয় ম্যাপে কাজ করা যায়।

৫. ছোট ফটোকপি অথবা ভূল ফটোকপিঃ
  ছোট সাইজের বেশিরভাগ  মেশিনে সঠিক স্কেলে কপি হয় না।  আবার বড় সাইজের অনেক চায়না মেশিনের ফটোকপি ও সঠিক স্কেলে আসে না।

আপনি কোন ম্যাপ তুলবেন?

আপনার কাছে ৩ টি সুযোগ রয়েছে-

  • স্কেন কালার প্রিন্ট  
  • প্রিন্ট কপি 
  • ফটোকপি 

আমার সাজেশন থাকবে প্রথমে প্রিন্ট কপি নেয়ার চেষ্টা করা, না হলে কালার স্কেন প্রিন্ট। যদি ফটোকপি বিষয়ে অভিজ্ঞতা থাকে এবং প্রফেশনাল নলেজ থাকে তবেই কেবল এইটা নিতে পারেন। 

ম্যাপের জন্য যে যে তথ্য লাগবেঃ

  • জেলাঃ
  • থানাঃ
  • মৌজাঃ
  • জে এল নম্বরঃ
  • দাগ নম্বর অথবা সিট নম্বরঃ
  • ম্যাপ বা জরিপের নামঃ

উদাহরণস্বরূপঃ

  • জেলাঃ ঢাকা
  • থানাঃ সাভার
  • মৌজাঃ ফুলবাড়িয়া
  • জে এল নম্বরঃ ৫০
  • দাগ নম্বর অথবা সিট নম্বরঃ ৫৩২
  • ম্যাপ বা জরিপের নামঃ RS Map 

কেউ যদি চান আমাদের BD Land Surveyor এর সহায়তায় মৌজা ম্যাপ বা নকশা তুলে কুরিয়ার সার্ভিসে নিতে পারবেন।  কুরিয়ার চার্জ সহ ৭৫০ টাকা + অতিরিক্ত ভালো মানের বড় সাইজের  ডিজিটাল কপি ৫০ টাকা = অর্থাৎ সর্বমোট ৮০০ টাকায় একটি প্রিন্ট ম্যাপ, ১টি ফটোকপি কপি নিতে পারবেন।  

কেউ যদি ম্যাপের সফট কপি ইমেইলে নেন ১০০ টাকা এবং ভালো লেমনেটিং করে নিলে ১৮০ টাকা অতিরিক্ত খরচ করতে হবে।  

প্রশ্নঃ ম্যাপ পেতে কতদিন সময় লাগবে??
উত্তরঃ ৫-৭ দিন।  

প্রশ্নঃ ম্যাপের জন্য কিভাবে যোগাযোগ করবেন?
উত্তরঃ মোবাইল, ইমু, হোয়াটস এপে 

01811811182, 01317-833396 ২ টি নম্বরে ইমু ও হোয়াইটস এপ অথবা টেক্সট মেসেজে আপনার প্রয়োজনীয় ম্যাপের তথ্য দিবেন।  ম্যাপের আবেদন কনফার্ম করতে ৫০০ টাকা বিকাশ, রকেট, নগদে দিয়ে কনফার্ম করতে হবে।  উপরের ২ নম্বরে   টাকা দিতে পারবেন।
যদি কোনো কারণে ম্যাপ বা নকশা না পাওয়া যায়। আপনার সম্পূর্ণ টাকা আপনি ফেরত পাবেন। যদি মনে হয় টাকা দেয়ার পর আপনি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।  তাহলে সেবার জন্য যোগাযোগ না করার অনুরোধ রইলো। যারা আমাদের কাছ থেকে ইতিপূর্বে বিভিন্ন বিষয়ে  সেবা নিয়েছেন তারা নিলেও হবে। 

যে কোন সহযোগীতায়ঃ 

ইমেইলঃ bdlandsurveyor@gmail.com

ওয়েবসাইটঃ www.bdlandsurveyor.com

ইউটিউবঃ BD Land Surveyor 

গুগল প্লে স্টোর কন্সোলঃ BD Land Surveyor

ময়নামতি ল্যান্ড সার্ভে অফিস।
মোল্লা মার্কেট (২য় তলা),  হেমায়েতপুর বাস স্ট্যান্ড, সাভার, ঢাকা- ১৩৪০
ধন্যবাদান্তে, সার্ভেয়ার মোঃ রিমন খান।
ব্যাবস্থাপক ময়নামতি ল্যান্ড সার্ভে অফিস।

Post a Comment

Previous Post Next Post